Logo

খারাংখালীর শাহ আলম বাহিনীর বিরুদ্ধে পুলিশ সুপার বরাবরে স্মারকলিপি পেশ

প্রতিকার চেয়ে জেলা পুলিশ সুপার বরাবরে স্বারকলিপি পেশ।                                    হোয়াইক্যং এর খারাংখালীর শাহ আলম বাহিনীর বিরুদ্ধে জমি জবর দখল ও ত্রাস সৃষ্টির অভিযোগ
বার্তা পরিবেশক:                                  টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের খারাংখালীতে যুবলীগ নামধারী শাহ আলমের বিরুদ্ধে ত্রাস সৃষ্টি ও জমি জবর দখলের প্রতিকার চেয়ে
কক্সবাজার পুলিশ সুপার বরাবরে স্বারকলিপি দিয়েছে ভুক্তভোগী পরিবার।
তথাকথিত নেতা নামধারী উক্ত শাহ আলম সহ ১২ জনের বিরুদ্ধে একই অভিযোগে
অতিরিক্ত জেলা মেজিষ্ট্রেট এর আদালতে (এমআর মামলা নং-৩৯৮/২০২১)ও মামলা
দায়েরে করে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার। পুলিশ সুপার এর কার্যালয়ের স্বারক
নং-১৩৪৫,তারিখ-১৭/০২/২০২১ মূলে জানা যায়, শাহ আলম তার সন্ত্রাসী বাহিনী
দিয়ে সৌদি প্রবাসীর জমি জবর দখল পূর্বক নিজের কব্জায় এনে মোটা টাকায় দখল
বিক্রি করছে। তার শক্তিশালী অস্ত্রধারী বাহিনী থাকায় জমির মালিক পক্ষ
অসহায় হয়ে পড়ে। একের এক হুমকি দিচ্ছে জমির মালিক কে। তার বিরুদ্ধে আদালতে
মামলা করায় বাদী হেলাল উদ্দিন পিতা: সোনালী কে একের পর এক প্রাণনাশের ও
হুমকি দিয়েছে শাহ আলম বাহিনী। এ ব্যাপারে হেলাল গত ১৯ ফেব্রুয়ারী টেকনাফ
মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী ও করেছে হেলাল উদ্দিন।
জানা যায়, শাহ আলম এক প্রবাসি দম্পত্তির ক্রয়কৃত ২ একর ৮৯ শতাংশ প্রায়
দেড় কোটি টাকার মূল্যের জমি তার লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে জবর দখলে নেয়।
ভুক্তভোগীর পরিবারের অভিযোগ, মধ্য হ্নীলা মৌজায় ২ একর ৮৯শতাংশ জমি
প্রবাসি ইমাম হোছাইন ও তার স্ত্রী খালেদা বেগম ক্রয়সূত্রে মালিক হয়ে
ভোগদখল করে আসছিলেন। ১৯৮০ সালে ১৪১৮,১৪১৯ নং পৃথক ২দলিল মূলে সরওয়ার
কামাল ও ছিদ্দিক আহমদ থেকে ২একর ৮৯শতাংশ জমি খরিদ করে। যার সৃজিত খতিয়ান
নং-৪৯২৬,৪৯২৭,৫৬৫২(২০১৮)। প্রবাসি ইমাম হোছাইন ও তার স্ত্রী খালেদা বেগম
দীর্ঘকাল যাবত তারা ভোগ দখলে ছিল। এরইমধ্যে জমিটিতে নজর পড়ে টেকনাফের
খারাংখালির পাতি নেতা শাহ আলমের। তার সাথে উক্ত বাহিনীর সদস্য সরওয়ার
পিতা: ছৈয়দ হোছন,গুরাপুতু পিতা: ফয়জুল হক,জামাল উদ্দিন, পিতা: ফজল করিম,
ভুলু সওদাগর পিতা: ঠান্ডা মিয়া, গোলাম হোছন,পিতা: নজির আহমদ সহ ১২/১৩
জনের একটি সংঘবদ্ধ স্বশস্ত্র গ্রুপ রয়েছে বলে স্বারক লিপিতে উল্লেখ
রয়েছে।
ভুক্তভোগী পরিবার আরো জানায়,আসন্ন ইউপি নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী
হিসাবে নির্বাচনের খরচ মেঠাতে সম্প্রতি তিনি কয়েকমাস যাবত ১২/১৩ জন
সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে জমিটি দখলে নেয়ার চেষ্টা করেন। এতে জমির মালিকের
বয়োবৃদ্ধ পিতা পুত্র বাধা দিলে তাদের কে দা কিরিচ দিয়ে ধাওয়া করে। পরে
বিষয়টি এলাকার গণমান্য ব্যক্তিদের সাথে আলোচনা করেও কোন সুরাহা হয়নি। গত
২৫ জানুয়ারী ২০২১ অনুসন্ধানী সাংবাদিকদের একটি ঠিম সরেজমিনে গেলে শাহ আলম
গ্রুপ জমি দখলের পরেই উক্ত জমিতে তারা বিভিন্ন স্থাপনা দ্রুত গতিতে
নির্মাণকাজ করতে থাকে। ইতিপূর্বে এ নির্মাণ কাজে বাঁধা দিতে গিয়ে
দখলকারীদের হামলার শিকার হয়েছেন ভুক্তভোগীর পরিবার । স্থানিয় হ্নীলা
ইউপির ১ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বশির আহমদ জানান, প্রবাসি ইমাম হোছাইন ও
তার স্ত্রী খালেদা বেগম দীর্ঘদিন যাবত সৌদিতে অবস্থান করছেন । তারা
এলাকায় না থাকার সুযোগে স্থানীয় প্রভাবশালী শেখ শাহ আলম গংরা তাদের জমি
জোরপূর্বক দখল করে বর্তমানে দখল বিক্রির বাণিজ্য শুরু করেছে। প্রবাসী
খালেদার পিতা সোনালী জানান, শাহ আলম ক্ষমতার বলে জোর করে আমার ভোগদখলীয়
জমি দখলে রখেছে। আমি তার প্রতিকার চাই। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শাহ আলম এর
মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও ফোন রিসিভ করেনি। বর্তমানে উক্ত পরিবার
জবর দখলকারী শাহ আলম গংদের বিচার চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে দপ্তরে ঘুরছে। #


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Developed By Banglawebs