বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩, ০৪:২২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার দাবীতে কক্সবাজার শহরে ইসলামী আন্দোলনের স্বাগত মিছিল কক্সবাজারে হাইওয়ে পুলিশ কর্তৃক ৩৬০০পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার-১ ইসলামী আন্দোলনের টেকনাফ উপজেলার উত্তর শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত টেকনাফে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ৪র্থ ধাপে ভুমি ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে ঘর হস্তান্তরের বিষয়ে প্রেস ব্রিফিং হোয়াইক্যং পুলিশের অভিযানে মাদক মামলার ৭ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী আটক কান্জরপাড়ায় জমির বিরোধ নিয়ে থানায় অভিযোগ দেয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-১ হোয়াইক্যং কাটাখালীতে আলোর ছোঁয়া ফ্রেন্ডশিপ ক্লাবের উদ্যোগে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচি সম্পন্ন প্রাথমিকের বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল স্থগিতঃ ১ মার্চ পুনরায় প্রকাশ করা হবে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার ‘মাদকপ্রবণ অঞ্চল’ ঘোষণা করা হলে কী হতে পারে? পালংখালী ফারিয়ার পিকনিকে চট্টগ্রাম বিভাগ ফারিয়া সভাপতি আবু সুফিয়ান সংবর্ধিত

ধরে এনে টাকা আদায়ের অভিযোগে পুলিশের দুই কর্মকর্তা প্রত্যাহার

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২ অক্টোবর, ২০২১, ১২.৫৬ এএম
  • ৪৭০ বার পঠিত

চার যুবককে ধরে টাকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগে চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার হাসাদহ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই রকি মন্ডল ও এএসআই সাহাজুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) তাদের দুইজনকে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়।

স্থানীয়রা ও ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা জানান, জীবননগর উপজেলার হাসাদহ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রকি মন্ডল ও এএসআই সাহাজুল ইসলাম বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাতে হাসাদহ গ্রামের শরিফুল ইসলাম, সজল, শফি এবং রানা নামের চার যুবককে মাদক সেবনের অভিযোগে আটক করেন। পরে তাদের ফাঁড়িতে নিয়ে পরিবারের সদস্যদের খবর দেয়। পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা রাত আনুমানিক ১১টার দিকে ওই চার যুবককে ছেড়ে দেয় পুলিশের ওই দুই কর্মকর্তা। আর্থিক লেনদেনের বিষয়টি এক পর্যায়ে ওই এলাকার লোকজনের মধ্যে জানাজানি হয়। এতে ওই ২০ হাজার টাকা বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাতে ভুক্তভোগীদের বাড়িতে ফেরত দিয়ে যান ওই দুই পুলিশ কর্মকর্তা।

এরই মধ্যে বিষয়টি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ জানতে পেরে তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়।

জীবননগর থানা পুলিশের ওসি মো. আব্দুল খালেক বলেন, ‘হাসাদাহ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রকি মন্ডল ও এএসআই সাহাজুল ইসলামকে পুলিশ লাইন্সে নেওয়া হয়েছে। তবে কী কারণে তাদেরকে প্রত্যাহার করে সেখানে নেওয়া হয়েছে তা এখন পর্যন্ত জানতে পারিনি।

জেলা পুলিশ সুপার মো. জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘পেশাদার পুলিশের ট্রেনিং নিয়ে অপেশাদার কাজ করায় ওই দুই পুলিশ সদস্যকে পুলিশ লাইন্সে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

banglawebs999991
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Bangla Webs