Logo

মালয়েশিয়ায় আরো চার সপ্তাহ বাড়ছে নিয়ন্ত্রণ আদেশ

কোভিড-১৯ এর শুরুতে নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক সাফল্য অর্জন ও বিশ্বব্যাপীর ব্যাপক প্রশংসা কুড়ানো পর্যটন নগরী মালয়েশিয়া করোনার দ্বিতীয় ধাপে এসে তা নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছে। মালয়েশিয়ায় চলছে এখন করোনার এক চেটিয়া রাজত্ব। প্রায় প্রতিদনই বাড়ছে সংক্রমণের হার ও মৃত্যু সংখ্যা।

প্রথম ধাপে দিনে তিন শতাধিক অতিক্রম না করলেও দ্বিতীয় ধাপের সংখ্যা এখন হাজার ছাড়িয়েছে। যার সর্বোচ্চ সংখ্যা ছিল শুক্রবার ১৭৫৫ জন। কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে দেশটিতে সেই মার্চ থেকেই চলে আসছে কখনো কন্ডিশনাল আবার কখনো নন কন্ডিশনাল নিয়ন্ত্রণ আদেশ। যা শেষ হওয়ার কথা ছিল আজ ৯ নভেম্বর।

এদিকে দেশটির সিনিয়র মন্ত্রী (সিকিউরিটি ক্লাস্টার) দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি ইয়াকব জানান, কোভিড-১৯ এর আক্রান্ত ভয়াবহ উত্থানের পরে আজ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের (এমওএইচ) সঙ্গে বৈঠক শেষে নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পেরিলিস, পাহাং ও কেলানটান বাদে উপদ্বীপ মালয়েশিয়ার সমস্ত রাজ্যকে ৯ নভেম্বর থেকে ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত চার সপ্তাহের জন্য শর্তসাপেক্ষ আবারো করোনা নিয়ন্ত্রণ আদেশের (সিএমসিও) অধীনে রাখা হবে।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সিএমসিও এমওএইচকে লক্ষ্যযুক্ত স্ক্রিনিং বাস্তবায়িত করতে এবং সম্প্রদায়ের মধ্যে করোনা হ্রাস করতে সক্ষম করবে যা এই রাজ্যগুলিতে কোভিড-১৯ সংক্রমণের বিস্তার রোধে সহায়তা করবে।

ইসমাইল বলেন, স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসেসার্স (এসওপি) আগের মতোই থাকবে। জেলাগুলিতে করোনা সংক্রমণ এবং জরুরি সংক্রমণের ক্ষেত্রে পুলিশ থেকে অনুমোদনের জন্য আবেদন করতে হবে না। জেলা এবং রাজ্যগুলি অতিক্রম করতে হবে এমন শ্রমিকদের কোনো নিয়োগকর্তার চিঠি তৈরি করতে হবে বা তাদের কাজটি পাস হবে এবং একটি পরিবারে কেবলমাত্র দু’জন ব্যক্তিকে প্রয়োজনীয় জিনিস-পত্র কিনতে যেতে দেওয়া হবে।কিন্ডারগার্টেন এবং শিক্ষার সাথে সম্পর্কিত সমস্ত স্কুল বন্ধ থাকবে বলেও জানান তিনি।

গতকাল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ২৪ ঘণ্টায় ১৭৫৫ নতুন কোভিড-১৯ সংক্রমণ এবং দু’টি মৃত্যুর খবর রেকর্ড করে-যা একদিনে মালয়েশিয়ায় এ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে, যার মধ্যে কেবল তিনজন ছিল বিদেশি। কুয়ালালামপুর, সেলেঙ্গর এবং পুত্রজায়া বর্তমানে ১৪ অক্টোবর থেকে সিএমসিওর অধীনে রয়েছেন, তবে নভেম্বরের শুরুর দিকে সাবাহ রাজ্য নির্বাচনের পর থেকে এই আক্রান্ত হাজারে ছড়িয়ে যায় বলেও জানান মন্ত্রী সাবরী ইয়াকব।

এদিকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, শনিবার মালয়েশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১১৬৮ জন আক্রান্ত এবং ৩ জনের মৃত্যু ও ১০২৯ জনের সুস্থতার খবর রেকর্ড করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Developed By Banglawebs