Logo

রাজধানীতে বাসে আগুন দেয়ার ঘটনায়, ২৮জন রিমান্ডে

রাজধানীতে বৃহস্পতিবার বাসে আগুনের ঘটনায় শাহবাগ, পল্টন, মতিঝিল, বংশাল, কলাবাগান, সূত্রাপুর, খিলক্ষেত ও তুরাগ থানায় দায়ের করা পৃথক মামলায় ২৮ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

শুক্রবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম ধীমান চন্দ্র মণ্ডল আদালত এই রিমান্ড আদেশ দেন। এদিন আসামিদের আদালতে হাজির করে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তারা। শুনানি শেষ বিচারক ওই রিমান্ড আদেশ দেন।

শাহবাগ থানায় দায়ের করা পৃথক দুই মামলায় ৬ আসামির তিনদিন করে রিমান্ডপ্রাপ্তরা হলেন- হযরত আলী, মঈনউদ্দিন, আবু সাঈদ শান্ত, আবুল কালাম আজাদ, আবু সুফিয়ান ও সোহেল।

পল্টন থানার এক মামলায় ২ জন তিনদিন করে রিমান্ডপ্রাপ্তরা হলেন- আলিজা আল আহমেদ মিটু ও মেহেদী হাসান ইয়াছিন। আর পাঁচদিন করে রিমান্ডপ্রাপ্তরা ৭ আসামিরা হলেন- একে ফজলুর বারী, আলতাফ হোসেন, নাঈম প্রধান, আলিফ মাহমুদ, হুমায়ুন রশীদ টুটুল, খন্দকার মাশুকুর রহমান ও রাশেদুজ্জামান।

মতিঝিল থানার এক মামলায় আবদুর রহমান তাহের নামের একজনকে দুইদিনের রিমান্ডে দেয়া হয়। একই থানায় আরেক মামলায় জাকির হোসেন নামের একজনকে তিনদিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়। এ দুই মামলায় আসামি দুইজনের পাঁচদিন করে রিমান্ড চেয়েছিল মতিঝিল থানা পুলিশ।

বংশাল থানায় একটি মামলায় দুইদিনের রিমান্ডে যাওয়া ২ আসামি হলেন- সফিউদ্দিন আহমেদ সেন্টু ও মৃদু রহমান জনি ওরফে মোরশেদুর রহমান জনি।

কলাবাগান থানায় একটি মামলায় দুইদিন করে রিমান্ডে পাঠানো ২ আসামি হলেন- মাহিফুর রহমান টিপু ও মাঈনউদ্দিন চৌধুরী।

এছাড়া সূত্রাপুর থানায় একটি মামলায় ৪ আসামির তিনদিন করে রিমান্ডে দেন আদালত। খিলক্ষেত থানায় একটি মামলায় দুইদিনের রিমান্ডে যাওয়া ২ আসামি হলেন মশিউর রহমান মসি ও ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম।

তুরাগ থানায় একটি মামলায় সোহেল মিয়া নামের এক আসামির তিনদিনের রিমান্ড আদেশ হয়েছে।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন ও বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলাগুলো করা হয়েছে। মামলার বাদী পুলিশ।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার রাজধানীর অন্তত ছয়টি স্থানে হঠাৎ একাধিক বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এদিন দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা বাসে আগুন দেয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

ফায়ার সার্ভিসের দায়িত্বরত কর্মকর্তা জানান, তারা দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে একে একে কাঁটাবন, বংশাল, মতিঝিল, শাজাহানপুর, গুলিস্তানের গোলাপ শাহ মাজার ও প্রেসক্লাব এলাকায় বাসে আগুন দেওয়ার খবর জানতে পারেন। পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Developed By Banglawebs