বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৬:২৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
২১ মে যেসব এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার নিয়ে সুসংবাদ দিলেন প্রতিমন্ত্রী: মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার বন্ধ হবে না বাজারে আসছে নতুন পানীয় প্যালেস্টাইন কোলা মালয়েশিয়ায় ৬টি পিস্তল সহ ইসরায়েলি নাগরিক আটক: দেশজুড়ে সতর্কতা জারি বাংলাদেশের জ্বালানি খাতে সৌদি আরবের ১৪০ কোটি ডলার বিনিয়োগ ভুটানের রাজাকে সঙ্গে নিয়ে কেক কাটলেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ছিনতাইকালে ধরা পড়া দুই পুলিশ সদস্য রিমান্ডে! ২৮ মার্চ জেলা ইসলামী আন্দোলন ইফতার মাহফিল হোটেল অস্টারইকো তে। মিয়ানমারে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে বিদ্রোহীরা প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছে মোস্তাফিজ ও বাবুল
রোহিঙ্গা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্য অসঙ্গত: বেইজিং

রোহিঙ্গা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্য অসঙ্গত: বেইজিং

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের ভূমিকা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিফেন ই বিগানের মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে বেইজিং। তারা বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য ‘অসঙ্গত’ ও ‘গঠনমূলক’ নয়।

শনিবার ঢাকার চীনা দূতাবাস এক বার্তায় এই প্রতিক্রিয়া জানায়।

সম্প্রতি বাংলাদেশ সফর শেষে দেশে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিফেন বিগান রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীনের ভূমিকার সমালোচনা করেন। বিগান বলেন, চীন রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে খুব কম কাজ করেছে।

চীনের বার্তায় বলা হয়, সম্প্রতি ভারত ও বাংলাদেশ সফর শেষে মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিফেন ই বিগান ওয়াশিংটন ডিসিতে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছেন, ‘দুর্ভাগ্যক্রমে চীন রোহিঙ্গা ইস্যু সমাধানে সহায়তা করার জন্য খুব কম কাজ করেছে।’

দূতাবাস বলছে, ‘সবার প্রত্যাশা বিগানের এ সফর বাংলাদেশ-মার্কিন সম্পর্কের দিকে নজর দেবে।’

দূতাবাসের ভাষ্য, চীন-ভারত সীমান্ত সংঘাত, তাইওয়ান প্রণালীতে উত্তেজনা, দক্ষিণ চীন সাগরের সমস্যা এবং হংকংয়ের জাতীয় সুরক্ষা আইন প্রসঙ্গে ১৫ অক্টোবর বিগান বাংলাদেশ ছাড়ার আগেই চীনের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ শুরু করেছিলেন। এসব ইস্যুর সঙ্গে বাংলাদেশের কোনো সম্পর্ক নেই।

দূতাবাসের বার্তায় আরও বলা হয়, এ ধরনের আচরণ কেবল কূটনৈতিক নীতিমালার মারাত্মক লঙ্ঘন নয়, সফরটির আয়োজক দেশের প্রতিও অশ্রদ্ধা। বাংলাদেশ একটি শান্তিপ্রেমী দেশ যাদের নীতি সবার সাথে বন্ধুত্ব এবং কারও সাথে শত্রুতা নয়।

দূতাবাস বলছে, বিগানের ২০ অক্টোবরের মন্তব্য কেবল এ রকম আচরণের ধারাবাহিকতা, যেখানে বাংলাদেশের গুরুতর উদ্বেগের বিষয় রোহিঙ্গা ইস্যুকে ব্যবহার করা হয়েছে চীনের সমালোচনা এবং নিজের পক্ষপাতিত্ব প্রচার করতে।

‘যেহেতু চীন এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার সমস্যাগুলো সমাধানে আমাদের প্রচুর দ্বিপক্ষীয় চ্যানেল রয়েছে, তাই সম্মতি ছাড়াই বিগানের কোনো তৃতীয় পক্ষকে টেনে আনা উচিত হয়নি’ বলছে চীনা দূতাবাস।

দূতাবাস জানায়, ২০১৭ সাল থেকে চীন রোহিঙ্গা ইস্যুতে তিন দফায় মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক এবং কর্মপর্যায়ে বহু দ্বিপক্ষীয় ও ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ সভা করেছে।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন রাজনৈতিক এবং মানবিক প্রচেষ্টা শুরুতেই আরম্ভ করেছে এবং সমাধান না পাওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে বলে জানায় দূতাবাস।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design By Rana